লেখক,একেএম ফজলুল হক কাসেমঃ

মানুষ মানুষের জন্য, দান করলে এক বার আর সত পরামর্শ হাজার বার। দান করতে উদার মন ও অর্থনৈতিক সামর্থ লাগে আর সত পরামর্শে একটা সমাজে উপকৃত হতে পারে। অপর দিগে যারা দান গ্রহন করতে বাধ্য হয় তারা মনের দিগ দিয়ে দুর্বল হয়ে পড়ে। দান করার ভিতর যেমন কোন বাহাদুরি নেই কিন্ত দান গ্রহন করার ভিতর নানান রকম লজ্জা বোধের কারন আছে। আমরা সবাই চাই সমাজে মাথা উচ্চ করে চলতে কিন্ত চলতে চাইলেই তো আর চলা যায় না, দরকার অর্থনৈতিক সাবলম্বিতা। তাই যে কোন দুর্যোগ কালিন সময়েই পদক্ষেপ নিতে হবে দুর্যোগ পরবর্তি সময়ে আমাদের করনিও কি। করোনা ভাইরাসও আল্লাহর রহমতে বাংলাদেশ থেকে বিদায় নিবে,এই করোনা ভাইরাস বিদায় নেওয়ার পর যেন আমাদের অন্যের মুখাপেক্ষি হতে না হয় তার জন্য আমরা অযথা সময় নষ্ট না করে যার যে জমি জমা আছে তা এক কানিও ফাকা না রেখে সময় উপযোগি বিভিন্ন সবজি ও ফসলের চাষ শুরু করি। সময় উপযোগি বিভিন্ন প্রকার সবজি আমরা বাড়ির আংগিনায় ও ছাদে করতে পারি।অনেকের বাড়ির পাশ্বে ডোবা ও অকেজো পুকুর থাকলে সেটা পরিস্কার করে মাছের চাষ করতে পারি।বাড়িতে হাস মুরগি ছাগল ও গরু পালন ও ব্যাপক লাভ জনক।আমাদের সমাজে অনেক বিত্তশালি লোক আছে যাদের অনেক অকেজো জায়গা জমি পতিত পড়ে আছে তারা নিজেরাই উদ্দোগি হয়ে যাদের নিজস্ব লোক জন আছে অথচ গরিব মানুষ তাদের প্রতি কিছু জমি জমা বরগা ও সহজ শর্তে লিজ দিয়ে সহযোগিতার হাত বাড়ানো উচিত। কারন আপনার প্রতিবেশি অভাবে থাকলে আপনার শান্তিতে থাকার কথা না, যাদের সামর্থ আছে তাদের উচিত বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কর্মসুচি হাতে নেওয়া যাতে খেটে খাওয়া মানুষ গুলোর কর্মস্থানের সুযোগ হয়, তাই এই মুহুর্তে সবার এগিয়ে আসা উচিত দেশ ও জনগনের কল্যানের জন্য।

 34 total views

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here